Thursday, April 18International Online Tv Portal
Shadow

কুষ্টিয়ার মেহেরপুরে দিন দিন বাড়ছে পান চাষ

অনলাইন ডেস্ক :

কুষ্টিয়ার গাংনী উপজেলার কয়েকটি গ্রামে নিয়মিত পান চাষ হতো। বর্তমানে জেলার প্রতিটি গ্রামে পান চাষ হচ্ছে। জেলায় ২০০ হেক্টর জমিতে পানের বরজ আছে। দেশে ও আন্তর্জাতিক বাজারে পানের ব্যাপক চাহিদা থাকায় পান চাষে লাভবান হচ্ছে কৃষকরা। তাই অসংখ্য পানের বরজ সবগ্রামেই চোখে পড়ার মতো। গ্রামীণ অর্থনীতিতে আশা জাগাচ্ছে পান চাষ। একসময় ধারণা ছিল গাংনীর মাটি পান চাষের জন্য উপযুক্ত নয়। কিন্তু সে ধারণা বদলে গেছে। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে পান চাষের ব্যাপকতা বেড়েছে। মেহেরপুর কুলবাড়িয়া গ্রামের কৃষক নূর হোসেন বেশ কয়েক বছর ধরে অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি পান চাষ করে আসছেন। তার পান চাষে লাভবান হওয়াতে গ্রামের অনেকেই এখন পানচাষী হয়ে উঠেছেন। জানা যায়, পান চাষে কিছু রোগবালাই যেমন গোড়া পচা, লতা পচা, ঢলে পড়া, পাতা পচা, পাতায় ষ্পট ইত্যাদি দেখা যায়। এসব রোগ বালাই প্রতিকারের জন্য ছত্রাকনাশক ব্যবহার করতে হয়। পাটকাঠি, খড়, ধানের ছন, বাঁশের খুঁটি বা শলা ভালোভাবে শুকিয়ে জীবাণুমুক্ত না করলে পান চাষে ক্ষতি হয়। এছাড়া কৃষি বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা পান চাষীদের নিয়মিত দেখভাল আর পরামর্শ প্রদান করায় চাষিরা সাফল্যেও মুখ দেখছে। পান চাষ লাভজনক হওয়ায় কৃষকরাও আগ্রহ দেখাচ্ছে। এ বছর জেলায় ২০০ হেক্টর জমিতে পানের বরজ হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এখানে পান চাষ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে সংবাদ সূত্রে জানা গেছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *