Thursday, April 18International Online Tv Portal
Shadow

ভৈরবের দুই গ্রাম আকবরনগর ও মিরারচরের মধ্যে আবারও সংঘর্ষ

সোহানুর রহমান সোহান | ভৈরব অনলাইন ডেস্ক |

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে দুই গ্রামের নাম বাজারের সাইনবোর্ডে লেখা নিয়ে দুই গ্রামবাসীর মধ্য সংঘর্ষে উভয়পক্ষের শতাধিক গ্রামবাসী আহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকালে দুই গ্রামবাসীর মধ্য তুমুল সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর থেকে পুলিশের একটি বিশেষ টিম ও ভৈরব থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে গ্রামবাসীর সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনেন। সংঘর্ষে দু গ্রামের লোকজনের বাড়ি -ঘর ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার সংঘর্ষে আহতরা হলেন, আকবরনগর গ্রামের মোবারক হোসেন, হেলাল, হাসান আলী, আশারাফ উদ্দিন, বোরহান, মাছুম, দুলাল। মিরারচর গ্রামের আহতরা হলেন, আনোয়ার হোসেন, ফারুক মিয়া, মুর্শিদ, শাহ আলম, সেলিম, মানিক, রনি, মানিক মিয়া, সুমন, বাছির, সাগর, সফিকুল, ছিদ্দিক, রবিন প্রমূখ। আহতদের মধ্য অনেকরই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসাধীন রয়েছে। তাদের মধ্য কেউ কেউ স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে চলে আসছেন।

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ভৈরব উপজেলার আকবরনগর ও মিরারচর সংযুক্ত এলাকায় অবস্থিত একটি বাজারের নামকরণ নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে দুই গ্রামবাসীর বিরোধ চলছিলো। এরই জের ধরে গত এক মাস আগে ভৈরব- কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের পাশে বাজার এলাকায় একটি সাইনবোর্ডে বাজারের নাম লেখা নিয়ে দুই গ্রামবাসীর মধ্য সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

ভৈরব-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে গত জুলাই মাসের দিকে একটি সাইনবোর্ড লাগানো হয়। এই সাইনবোর্ডে সড়ক ও জনপদ বিভাগ আকবর নগর বাজার লিখে সড়কের সাইডে সাইনবোর্ডটি লাগানো হয়। পরে পার্শ্ববর্তী মিরারচর গ্রামের লোকজন সাইনবোর্ডটি ভেঙ্গে ফেলে। এই নিয়ে গত ৯ জুলাই দু দল গ্রামবাসীর মধ্য সংঘর্ষ বাঁধে। পরবর্তীতে স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ থানার ওসির মাধ্যমে ঘটনাটি মিংমাসা করা হয়। মিমাংসার এক মাস পর আবার একই ঘটনার জের ধরে দুই গ্রামবাসীর মধ্য সংঘর্ষে সুত্রপাত হয়। এসময় উভয় পক্ষ রামদা, লাঠিসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে একে অপরকে ধাওয়া করে। তারপর ব্যাপক সংঘর্ষে মেতে উঠে দুই গ্রামবাসী। ঘটনার সময় কিছু লোক দোকানপাট ভাংচুর ও লুটপাট করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। দীর্ঘ পাঁচ ঘন্টা সংঘর্ষে উভয় পক্ষের শতাধিক লোক আহত হয়েছে।

স্থানীয় আকবর নগর গ্রামের বৃদ্ধা আছিয়া বেগম বলেন, গ্রামের নাম নিয়ে এ সংর্ঘঘ আর কত দিন চলবে আমার জানা নেই! বিষয়টি মিমাংসা না হলে অচিরেই আরো বড় আকার ধারন করবে এতে করে জানমালের অনেক ক্ষয়ক্ষতি হবে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে কালিকাপ্রসাদ ইউপির চেয়ারম্যান মোঃ লিটন মিয়া বলেন, আকবরনগর ও মিরারচর গ্রামের নাম বাজারের সাইনবোর্ডে নাম লেখা নিয়ে দুইদল গ্রামবাসী এর আগেও বহুবার সংঘর্ষ করেছে। আজও তারা সরকারি সাইনবোর্ডের বাজারের নাম লেখাকে কেন্দ্র করে আবার সংঘর্ষে মেতে উঠে।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মাকছুদুল আলম আরো জানান , দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দীর্ঘ সময় পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। সাইনবোর্ডে এলাকার নাম নিয়ে ঘটনাটি ঘটে। এবিষয়ে মীমাংসার জন্য আমরা চেষ্টা করছি।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *