Friday, July 19International Online Tv Portal
Shadow

নেতা নয় একজন কর্মী হিসেবে দলের জন্য কাজ করতে চাই -মোবারক হোসাইন

ফিচার ডেস্ক :

মোবারক হোসাইনের জন্মস্থান কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলা শিবপুর ইউনিয়নে শম্ভুপুর গ্রামে। তার পিতার রফিকুল ইসলাম জজ মিয়া। তিনি ভৈরব বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও শিবপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি এবং উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

সাম্প্রতিক ইতালী আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহতাব হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মো: আলমগীর হোসেন এর স্বাক্ষরিত এক দলীয় প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ইতালি আওয়ামী লীগের সম্মানিত সদস্য হিসেবে মোবারক হোসাইন’কে নির্বাচিত করা হয়। ছাত্র রাজনীতি থেকে উঠে আসা ভৈরবের এই কৃতি সন্তান মোবারক হোসাইন ইতালিতে আসার পর থেকেই বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে জড়িত। দলকে সুসংগঠিত করার জন্যও কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। তাছাড়াও তিনি একজন রাজনৈতিক এবং সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান।

তার পিতা ইতালির রোম মহানগর পশ্চিম আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, কিশোরগঞ্জ জেলা সমিতি রোমের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে মোবারক হোসাইন ইতালির গরিঝিয়া, মনফালকনে শাখা বাংলাদেশ সমিতির সভাপতি ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন।

এছাড়াও তিনি ইতালির সুনামধন্য জাহাজ নির্মান ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আনাসের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।

মনফালকনে বসবাসরত প্রবাসী বাঙালিদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে কাজ করছেন এবং রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন’সহ মসজিদ স্কুল সহযোগিতা করে আসছেন। মোবারক হোসাইন ইতালির আসার আগে ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি তিতুমীর কলেজ থেকে বি.কম পাস করেন। সেই থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত তিনি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে এবং আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মাহতাব হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনের নেতৃতে ইতালি আওয়ামীলীগকে উজ্জীবিত করতে একজন সেবক হিসেবে কাজ করবেন।

একান্ত সাক্ষাৎকার তিনি জানান, আমি সেবক হতে চাই, নেতা হতে চাই না। আমি আওয়ামী লীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী।

সবাইকে সঙ্গে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করতে চাই।আওয়ামীলীগের গরিঝিয়া মনফালকোন শাখাকে ঐক্যবদ্ধ করে আগামীতে ইতালি আওয়ামী লীগের নেতৃত্বকে শক্তিশালী করতে চাই।

বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ এবং সমৃদ্ধিশালী পথে এগিয়ে যাচ্ছে। আর এটা আমাদের কারণেই সম্ভব হচ্ছে। কারণ আমরা রেমিট্যান্স যোদ্ধা, আমাদের পাঠানো অর্থের মাধ্যমেই দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি হচ্ছে।

দেশ-বিদেশে বসবাসরত সকল বাংলাদেশী দের দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে এগিয়ে যেতে চান সেই প্রত্যাশা কামনা করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *